Enjoy Viral Topics News and World News

Breaking

Tuesday, May 5, 2020

করোনাভাইরাস টিপস: ফুসফুসের কার্যক্ষমতা বাড়াতে সাতটি পরামর্শ

করোনাভাইরাস টিপস: ফুসফুসের কার্যক্ষমতা বাড়াতে সাতটি পরামর্শ. 
করোনাভাইরাস টিপস: ফুসফুসের কার্যক্ষমতা বাড়াতে সাতটি পরামর্শ


বিশ্বব্যাপী যে করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়েছে সেটা সরাসরি আমাদের শ্বাসনালী ও ফুসফুসকে আক্রান্ত করে। তাই সার্বিক স্বাস্থ্য রক্ষার পাশাপাশি আমাদের ফুসফুসের প্রতি বিশেষ যত্ন নিতে হবে। জীবন যাত্রায় সাধারণ কিছু পরিবর্তনের মাধ্যমেই তা সম্ভব। বিশেষঙ্গরা এই নিয়ে ৭ টি পরামর্শ  দিয়েছেন। সেগুলো হলোঃ

ধুমপান ছাড়ুনঃ সবার আগে ধুমপান ছেড়ে দিতে হবে। ধুমপানের কারণে নিকোটিন, টার, কার্বন মনোক্সাইড এর মতো হাজার হাজার রাসায়নিক আমাদের ফুসফুসে প্রবেশ করে ফুসফুসকে বিষাক্ত করে দেয়। এসব রাসায়নিক জমতে জমতে এক পর্যায়ে ফুসফুসের বাতাস চলাচলের পথ ছোট হয়ে যায়। এর ফলে শ্বাসকষ্ট এমনকি ক্যান্সার পর্যন্ত হতে পারে। তবে ধুমপান ছাড়লেই যে আপনি নিরাপদ হয়ে গেলেন তা কিন্তু নয়। এজন্য আপনাকে পরক্ষ ধুমপান অর্থাৎ ধুমপায়ীদের থেকে দুরে থাকতে হবে। 

পানিঃ ফুসফুস সুস্থ্য রাখতে পর্যাপ্ত পানি খাওয়ার কোনো বিকল্প নেই। এই পানি ফুসফুসে ফিলটার হিসেবে কাজ করে। এজন্য দিনে অন্তত ৬-৮ গ্লাস পানি খেতে হবে। 

কি খাবেন, কি খাবেন নাঃ খাদ্য তালিকায় সবুজ শাকসবজি, গাজর, টমেটো, লেবু সহ বিভিন্ন মৌসমী ফল যেমন আঙুর, আনারস, আমলকী, পেয়ারা সেই সঙ্গে সামুদ্রিক মাছ রাখতে হবে। কেননা এসব খাদ্যে রয়েছে প্রচুর পরিমানে অ্যান্টি অক্সিডেন্ট, ওমেগা থ্রি ফ্যাটি অ্যাসিড, ভিটামিন, মিনারেলস।
চেষ্টা করুন চিনি যুক্ত খাবার বা ক্যাফিন যুক্ত খাবার যেমন কোমল পানীয় চা, কফি ইত্যাদি। এছাড়া শিশুর ফুসফুসের বিকাশে অবশ্যই শিশুকে বুকের দুধ খাওয়াতে হবে। 

ব্যায়ামঃ আজ থেকে সপ্তাহে তিন থেকে পাঁচ দিন 30 (ত্রিশ) মিনিটের জন্য হলেও ব্যায়াম শুরু করুন। কারণ এতে শ্বাসতন্ত্রের পেশিগুলো সরক্ষিত হবে এবং ওজনও নিয়ন্ত্রনে থাকবে। তবে সবচেয়ে ভালো শ্বাস প্রশ্বাসের ব্যায়াম করা । এ ব্যায়াম এর সময় জোরে জোরে নিশ্বাস নিতে হয় এজন্য ফুসফুস সহ  আমাদের দেহের প্রতিটি কোষে প্রচুর পরিমানে অক্সিজেন প্রবেশ করে। যা আমাদের দিনক্ষন কর্মক্ষন রাখে। তাই শিশুদের খেলাধুলার প্রতি উৎসাহ দিতে হবে। বাড়িতে বসে ফুসফুসের ব্যায়াম করার জন্য আপনাকে পিঠ সোজা করে বসতে হবে এরপর নাক দিয়ে ধিরে ধিরে নিশ্বাস নিতে হবে যেনো মনে হয় পেট পর্যন্ত বাতাস পৌচাচ্ছে। এ বাতাস টানা ১০ সেকেন্ড ধরে রাখুন এবং মুখ দিয়ে ধিরে ধিরে ছাড়ুন। এভাবে ফুসফুস পরিস্কার হবে, কার্যক্ষমতা বেড়ে যাবে কয়েকগুন। 
তবে ধম ধরে রাখার সময় যদি আপনার কাঁসি আসে, বুকে চাপ দিয়ে ব্যাথা হয় তাহলে অবশ্যই চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে।

বাতাস বিশুদ্ধ রাখুনঃ গভেষনায় দেখা গেছে আমাদের বাড়ির ভেতরের বাতাস বাইরের বাতাসের চেয়েও বেশি দূষিত হয়। যার প্রভাব ফুসফুসের ওপর এসে পরে। এজন্য ঘর সব সময় পরিস্কার পরিচ্ছন্ন রাখতে হবে। সকালে দরজা জানালা খুলে দিবেন যাতে বাতাস চলাচল করে। যারা মাটির চুলা বা ধোয়া যুক্ত চুলা ব্যবহার করুন তারা চেষ্টা করুন কম ধোয়া বা ধোয়া বিহিন চুলা ব্যবহার করতে। এছাড়া ঘরের ভেতর কাপড় শুকানো এড়িয়ে যেতে হবে । সবচেয়ে ভালো এয়ার বেবি ফায়ার ব্যবহার করলে। 
এখন ভেতরের বাতাস নাহয় পরিস্কার করলেন বাহিরের বাতাস পরিস্কার করার সাধ্য তো আমাদের নেই। এজন্য উপায় হলো মাক্স পড়ে নিজেকে নিরাপদ রাখা। তবে সবচেয়ে ভালো হলো আপনি পরিবেশ দূষন বন্ধ করে দিন।

বিশ্রামঃ  ফুসফুস সুস্থ্য রাখার আরেকটি উপায় হলো পর্যাপ্ত বিশ্রাম নেয়া। যদি আপনার শ্বাসকষ্ট হয় তাহলে আপনাকে ঘুমের পরিমান বাড়িয়ে দিতে হবে। এতে আপনার ফুসফুস রোগের বিরুদ্ধে লড়াই করার সুযোগ পাবে এবং নিজস্ব প্রতিরোধ ক্ষমতায় সুস্থ্য হয়ে উঠবে।

পরিচ্ছন্নতাঃ করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে আমাদের বলা হচ্ছে বার বার হাত ধুতে কারণ এই হাত থেকেই ফুসফুসে ভাইরাস সংক্রমিত হওয়ার সুযোগ থাকে। তাই বার বার ২০ সেকেন্ড ধরে হাত পরিস্কার করা জরুরী। 

ফুসফুস বিষয়ে যা এড়িয়ে যাবেন নাঃ যদি আপনার দীর্ঘদিন ধরে কাঁশি ও শ্বাস কষ্ট থাকে কায়িক পরিশ্রম করলে অনেক বেশি ক্লান্ত লাগে, লম্বা শ্বাস নিতে গেলে বুকে ব্যাথা হয় বা যদি এমন মনে হয় আপনি পর্যাপ্ত বাতাস পাচ্ছেন না সেক্ষেত্রে দেরি না করে বিষেশঙ্গের পরামর্শ নিতে হবে। 
ডাক্তারদের পরামর্শ ছাড়া কোরো প্রকার ঔষধ সেভন করবেন না। আজ থেকে ফুসফুসকে সুস্থ্য রাখুন আর প্রাণ খুলে নিশ্বাস নিন।


Thanks For Visit Our Website

No comments:

Post a Comment